বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

অবশেষে আমতলীতে জামায়াত নেতার কনসার্ট বন্ধ, জনমনে স্বস্তি

জামায়াত নেতার উদ্যোগে আমতলী সরকারি কলেজ মাঠে আয়োজিত কনসার্ট বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। কনসার্ট বন্ধ হওয়ায় উপজেলার মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

তবে উপজেলাবাসী জামায়াত নেতা প্রকৌশলী মো. রাকিব চৌধুরী রাজুর প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে আয়োজিত কনসার্টের বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা এবং অর্থের উৎস খুঁজে বের করার দাবি জানিয়েছেন।

জানা গেছে, পিরোজপুর পৌর শহরের বাসিন্দা আমতলী উপজেলা সমাজসেবা অফিসে ইউনিয়ন মাঠকর্মী হিসেবে কর্মরত গোলাম আজম চৌধুরীর ছেলে প্রকৌশলী রাকিব চৌধুরী রাজু। রাজু ছাত্রজীবন থেকে শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকায় যুদ্ধাপরাধী জামায়াত নেতা দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর ঘনিষ্ঠজন হয়ে যান। তারই পৃষ্ঠপোষকতায় রাজু হাতিয়ে নেন ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের আইসিটি প্রকৌশলী হিসেবে চাকরি।

বাবার চাকরির সুবাদে রাজুর বসবাস আমতলীতে। ১৯৯৮ সালে আমতলী একে পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, ২০০০ সালে আমতলী ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসি, ২০০৪ সালে জামায়াতের অর্থায়নে ঢাকা আমেরিকান ইউনিভার্সিটি থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে উচ্চশিক্ষা অর্জন করেন। ছাত্রজীবন থেকেই ছাত্রশিবির রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন রাজু।

জামায়াতের পৃষ্ঠপোষকতা ও অর্থায়নে কম্পিউটার প্রকৌশলী হিসেবে লেখাপড়া শেষ করেন। লেখাপড়া শেষে জামায়াত নেতা যুদ্ধাপরাধী দেলোয়ার হোসেন সাইদীর সুপারিশে তিনি ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের কম্পিউটার শাখায় আইসিটি প্রকৌশলী হিসেবে চাকরিতে যোগদান করেন। বর্তমানে তিনি বরিশাল ইসলামী ব্যাংক শাখায় কর্মরত আছেন। ইসলামী ব্যাংকে চাকরিতে যোগদানের পর থেকে আর তাকে পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি।

একেক করে ইসলামী ব্যাংকের আমতলী পৌর শহরে, গাজীপুর বন্দর, ধানখালী ও তালুকদার বাজার ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাকিং আউটলেট শাখা স্থাপন করেন রাজু। ওই এজেন্ট ব্যাংকে জামায়াত ও শিবিরের লোকজনকে চাকরি দেন তিনি।

২০১৪ সালে আমতলীতে জামায়াত-শিবিরের শতাধিক নেতাকর্মী সংগঠিত করে স্বেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সংগঠন হিসেবে একটি সংগঠনের আত্মপ্রকাশ করেন। ওই সংগঠনের ব্যানারে সামাজিক কাজে নেমে পড়েন। দিন দিন প্রসারিত হতে থাকে তার জামায়াতি কর্মকাণ্ড। কিছু আওয়ামী লীগ নেতার সঙ্গে সখ্য গড়ে তুলে গোপনে তিনি আমতলীসহ দক্ষিণাঞ্চলে জামায়াত-শিবিরের কর্মকাণ্ড চালিয়ে যান।

এদিকে অভিযোগ রয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস উপেক্ষা করে জামায়াত নেতা রাজুর জামায়াতি কর্মকাণ্ড ধামাচাপা দেয়ার জন্য দেশের বরেণ্য সংগীত শিল্পী এনে আমতলী সরকারি কলেজ মাঠে সময় সংগঠনের নামে শুক্রবার কনসার্টের আয়োজন করেন। কনসার্টের আয়োজন করায় টনক নড়ে উপজেলার সচেতন নাগরিকের।

এ কনসার্ট বন্ধের জন্য আমতলী পৌর শহরের বাসিন্দা ও যুবলীগ নেতা রিপন মুন্সি বরগুনা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত আবেদন করেন। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রশাসন কনসার্ট বন্ধ করে দিয়েছেন। কনাসার্ট বন্ধ হওয়ায় করোনাভাইরাসের আতঙ্ক থেকে আমতলী উপজেলাবাসীর মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

আমতলী উপজেলা যুবলীগ নেতা রিপন মুন্সি বলেন, প্রকৌশলী রাকিব চৌধুরী রাজু আলাদিনের চেরাগ পেয়েছেন। জামায়াতের পৃষ্ঠপোষকতায় তিনি অল্প দিনের মধ্যেই বনে গেছেন কোটি টাকার মালিক। তিনি গোপনে সময় নামক একটি সংগঠনের ব্যানারে সামাজিক কর্মকাণ্ডের আদলে জামায়াত ও শিবিরকে সুসংগঠিত করতে মাঠে নেমেছেন। বর্তমানে তার জামায়াতি কর্মকাণ্ড ধামাচাপা দেয়ার জন্য কনসার্টের আয়োজন করেছে। তার অর্থের উৎস ও কর্মকাণ্ড খতিয়ে দেখে প্রশাসনকে কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাই।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি সাবেক পৌর কাউন্সিলর মো. মোয়াজ্জেম হোসেন খান বলেন, রাজুর আচরণ জামায়াত-শিবিরের। তার কর্মকাণ্ড খতিয়ে দেখে প্রশাসনকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাই।

এ বিষয়ে জামায়াত নেতা সময় স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠনের চেয়ারম্যান রাকিব চৌধুরী রাজু কনসার্ট বন্ধের কথা স্বীকার করে বলেন, ইনডোরে কনসার্ট করতে অনুমতি রয়েছে। তবে তিনি জামায়াত-শিবিরের কর্মকাণ্ডের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

আমতলী থানার ওসি মো. শাহ আলম হাওলাদার বলেন, প্রকৌশলী রাকিব চৌধুরী রাজুর জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে জড়িতের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাসের মহামারি থেকে মানুষকে রক্ষায় কনসার্ট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ছরোয়ার ফোরকান বলেন, প্রকৌশলী রাজিব চৌধুরী রাজু জামায়াতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। তিনি কিছু হাইব্রিড আওয়ামী লীগ নেতার পৃষ্ঠপোষকতায় জামায়াতি কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন। তার বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন।

শেয়ার করুন :
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp

আপনার মন্তব্য করুন :