বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

উজিরপুরে হত্যা মামলা তুলে নিতে হামলা

Print Friendly, PDF & Email

উজিরপুর প্রতিনিধি: বরিশালের উজিরপুরে ধামুরায় নিহত কলেজ ছাত্র সুজনের মায়ের উপর হত্যা মামলার আসামি কর্তৃক হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় নিহত সুজনের মা সুপ্রভা হালদার বাদী হয়ে  ৭জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ ৪ জনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করে।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে,  উজিরপুরের ধামুরায় আলোচিত কলেজ ছাত্র সুজন হত্যা মামলা তুলে নিতে  নিহত সুজনের  পরিবারকে হুমকি ধামকি ও চাপ প্রয়োগ করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৮আগষ্ট দুপুরে এজাহারে উল্লেখিত আসামি সুখরঞ্জন (৩৫) হৃদয় শীল(২০),রতন বলী(২৮),বিভুতি মাঝি(৪০),জগদিশ (৪৫),অরবিন্দূ মাঝি(২৫), রনজিত বিশ্বাস সহ কয়েকজন মিলে বাদীর ঘরের সামনে গিয়ে  তাদের উপর চড়াও হয়। প্রতিবাদ করলে উল্লেখিত আসামিরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে সুজনের মা ভাই বোন পরিবারের সদস্যরা আহত হয়।

উল্লেখ গত ১১জুন ২০১৭ ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে বিবাদের জেরে দিনমজুর অনিল হালদারের ছেলে ধামুরা ডিগ্রী কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র সুজন হালদারকে প্রকাশ্যে পিটিয়ে আহত করে একই এলাকার নারায়ন বিশ্বাসের ছেলে নয়ন বিশ্বাস (১৯)ও তার সংঙ্গীয় বাহিনী।

এসময় স্থানীয়রা ধাওয়া করে নয়নকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে। আহত সুজনকে উদ্ধার করে প্রথমে শেবাচিম হাসপাতালে পরে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজে নিয়ে গেলে ১২জুন ২০১৭ তারিখে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

এবিষয়ে সুজনের বাবা হত্যা মামলার বাদী আনিল হালদার জানান, হত্যা মামলা দায়েরের পর থেকেই মামলা তুলে নিতে হুমকি দিয়েছে প্রতিকার চেয়ে ২৪/০৫/২০১৭ তারিখে থানায় লিখিত অভিযোগ দেই। এবং আদালতে আসামিদের মামলায় অন্তর্ভুক্ত করার আবেদন করলে আদালত পুলিশের কাছে প্রতিবেদন চায় কিন্তু পুলিশ চূড়ান্ত রিপোর্টৈ একমাত্র নয়নকে অভিযুক্ত করে তাদের বাদ দিয়ে প্রতিবেদন দাখিল করে। এতে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিনিয়ত আমাকে আমার পরিবারের সদস্যদের হত্যা বাড়ি ঘর পুড়িয়ে এলাকা ছাড়া করবে বলে হুমকি দেয়।

এ বিষয়ে উজিরপুর মডেল থানার ওসি শিশির কুমার পাল বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে নিয়ে হামলা মামলার চার আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহত সুজনের পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *