বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

একজন পরীক্ষার্থী, একজনই ফেল প্রতিষ্ঠানের অনুমতি বাতিল

অনলাইন ডেস্ক : সাতক্ষীরার তালা উপজেলার জালালপুর ইউনিয়ন আদর্শ দাখিল মাদ্রাসা থেকে এবারের দাখিল পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল একজন পরীক্ষার্থী। কিন্তু সেই একজনই পাস করতে পারেনি। ফলে প্রতিষ্ঠানটি বোর্ডের খাতায় শূন্য পাসের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হলো।

জালালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম মফিদুল হক গতকাল বুধবার মুঠোফোনে বলেন, ওই প্রতিষ্ঠানটির খুব একটা কার্যক্রম নেই।

এই মাদ্রাসাসহ এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় শূন্য পাস করা ১০৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে সরকার। কারও এমপিওভুক্তি, কারও একাডেমিক স্বীকৃতি, কারও পাঠদানের অনুমতি বাতিল বা স্থগিত করা হবে।

শূন্য পাস করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৫৯টি মাদ্রাসা, ৪৩টি কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। এ ছাড়া বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে দুটি, দিনাজপুর, রাজশাহী ও যশোর শিক্ষা বোর্ডের অধীন একটি করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে।

শূন্য পাস ১০৭ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান
মাদ্রাসার সংখ্যা ৫৯টি
কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৪৩টি
বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে ২টি
দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডে ১ টি
রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে ১ টি
যশোর শিক্ষা বোর্ডে ১ টি

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীন এমন ৫৯টি মাদ্রাসার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বোর্ড। এর মধ্যে আটটি মাদ্রাসা এমপিওভুক্ত। এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা প্রতি মাসে বেতন-ভাতা বাবদ সরকারি অংশ (মূল বেতন ও কিছু ভাতা) পেয়ে থাকেন।

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান এ কে এম ছায়েফ উল্যা বলেন, শূন্য পাস করা এই মাদ্রাসাগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য গতকালই কারণ দর্শানোর নোটিশের ফাইল অনুমোদন করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট এলাকার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) মাধ্যমে সাত দিনের মধ্যে নোটিশের জবাব দিতে হবে। এই জবাবের পরিপ্রেক্ষিতে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ব্যবস্থা হিসেবে মাদ্রাসা এমপিওভুক্ত হলে বাতিল বা স্থগিত, কোনো কোনো মাদ্রাসার একাডেমিক স্বীকৃতি বা পাঠদানের অনুমতি বাতিল বা স্থগিত করা হবে।

শেয়ার করুন :

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp

আপনার মন্তব্য করুন :

আমাদের সকল আপডেট পেতে মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন প্লে-ষ্টোর থেকে।