বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

গৃহকর্মী সেবা দিতে অভিনব উদ্যোগ দুই তরুণের

অনলাইন ডেস্ক :: প্রযুক্তির ছোঁয়ায় নিত্যদিনের অনেক সমস্যার সমাধান হলেও কিছু সমস্যা রয়েই গেছে। এরমধ্যে গৃহকর্মী পাওয়ার সমস্যা অন্যতম। নগরবাসীকে এখনো প্রতিনিয়ত গৃহকর্মী খুঁজতে নানা জনের কাছে যেতে হয়। পর্যাপ্ত টাকা দিয়েও দক্ষ গৃহকর্মী পওয়া যায় না। এ সমস্যার সমাধান দিতে দুই তরুণ একটি অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে। যার নাম হ্যালোটাস্ক। বিস্তারিত জানাচ্ছেন জি এম আদল-

যারা গৃহকর্মী খুঁজছেন বা বাসার অদক্ষ গৃহকর্মী নিয়ে ভোগান্তিতে আছেন; তাদের জন্য হ্যালোটাস্ক হতে পারে সমাধানের মাধ্যম। এটি মূলত একটি অ্যাপভিত্তিক অন ডিমান্ড গৃহকর্মী সার্ভিস। এ অ্যাপের মাধ্যমে মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে ঘরে বসে সহজে একজন দক্ষ গৃহকর্মী খুঁজে পেতে পারেন। গৃহকর্মী চাওয়ার ৩০ মিনিটের মধ্যে আপনার বাসায় হ্যালোটাস্কের একজন সুদক্ষ গৃহকর্মী পৌঁছে যাবে। ঘণ্টাপ্রতি চার্জে সেবাটি গ্রহণ করতে পারবেন।

হ্যালোটাস্কের দুই প্রতিষ্ঠাতা মাহমুদুল হাসান লিখন ও মেহেদী স্মরণের কাছে এর শুরুর গল্প জানতে চাইলে তারা জানান, ২০১৭ সালে লিখন খেয়াল করলেন তার বাসার গৃহকর্মী প্রায়ই নানা অজুহাতে আসেন না। এতে প্রায়ই বিপাকে পড়তে হতো। পরে তিনি ভেবে দেখেন, সমস্যাটি শুধু তার একার নয়। ঢাকা শহরের বেশিরভাগ বাসার সমস্যা এটি। এর সমাধান কিভাবে করা যেতে পারে, সেই ভাবনা থেকে হ্যালোটাস্কের আইডিয়া মাথায় আসে লিখনের। তারা ভাবতে থাকেন প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে কিভাবে এ সমস্যার সমাধান করা যায়। সেই চিন্তা থেকেই তারা শুরু করেন অ্যাপভিত্তিক গৃহকর্মী সরবরাহ সেবা।

সেবা নেওয়ার পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা জানান, হ্যালোটাস্কের মাধ্যমে গৃহকর্মী পেতে প্রথমে গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপটি মোবাইলে ইনস্টল করতে হবে। এরপর অ্যাপে গ্রাহকের প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে হবে। চাওয়া মাত্রই গ্রাহক দ্রুত যেন গৃহকর্মী পেতে পারেন। তাই অ্যাপে গ্রাহকের বাসার লোকেশন সংযুক্ত করতে হবে। সার্ভিস চার্জ ঘণ্টা হিসেবে এবং প্যাকেজ সিস্টেমে নির্ধারণ হয়। চালু আছে ইনস্ট্যান্ট এবং মাসিক প্যাকেজ। যে কেউ চাইলে যেকোন প্যাকেজ নিতে পারেন।

উভয়পক্ষের নিরাপত্তা সম্পর্কে দুই উদ্যোক্তা জানান, চুরির মতো কোনো কিছু যাতে না ঘটে, সেজন্য গৃহকর্মীদের কাছ থেকে নিশ্চয়তা নেওয়া হয়। যারা গৃহকর্মী হিসেবে যুক্ত হচ্ছেন; তাদের জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি, জন্ম নিবন্ধনের কপি, স্থানীয় অভিভাবকের আইডি কার্ড রাখা হয়। এ ডকুমেন্টস এনআইডি সার্ভার থেকে ভেরিফাই করা হয়। যাতে কোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটলেও গ্রাহক এবং প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারেন। আবার গৃহকর্মীর নিরাপত্তার ব্যাপারেও সচেতন তারা। তাদের টিম প্রতিনিয়ত পর্যবেক্ষণ ও তদারকি করে।

সেবার মান সম্পর্কে জানতে চাইলে প্রধান নির্বাহী মাহমুদ হাসান লিখন বলেন, ‘আমি রাতে বসে সারাদিনে যে কয়টি অর্ডার কমপ্লিট হয়েছে; সবগুলোর রেটিং, রিভিউ দেখি। বোঝার চেষ্টা করি, কাস্টমার স্যাটিসফেকশন কেমন, গৃহকর্মীদের কাজের কোয়ালিটি কেমন। কেউ ১ স্টার দিলে বা খারাপ রিভিউ দিলে, তাকে ১ ঘণ্টা সার্ভিসের টাকা রিফান্ড করে দেই। সাথে নোটিফিকেশন পাঠিয়ে ‘স্যরি’ বলি। এ পর্যন্ত আমরা ১২শ’র উপরে সার্ভিস দিয়েছি। নেগেটিভ রেটিংয়ের কারণে রিফান্ড দিতে হয়েছে মাত্র ২৫০ টাকার মতো। আমাদের নেগেটিভ রেটিং ০.৫% এর নিচে। সুতরাং সার্ভিস কোয়ালিটি আপনারাই আন্দাজ করে নিতে পারেন!’

ইতোমধ্যে ৫০ হাজারের মতো অ্যাপ ডাউনলোড হয়েছে হ্যালোটাস্কের। তাদের ৪২ হাজারের বেশি রেজিস্ট্রার কাস্টমার রয়েছে। অক্সফাম এবং ব্র্যাকের সঙ্গেও কাজ করছে হ্যালোটাস্ক। আইসিটি মন্ত্রণালয়ও এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে। আইসিটি মন্ত্রণালয়ের আইডিয়া প্রকল্প স্টার্টআপ বাংলাদেশ তাদের প্রতিনিয়ত সহযোগিতা করে যাচ্ছে।

কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ইতোমধ্যে হ্যালোটাস্কের ঝুলিতে জমা হয়েছে নানা সম্মান ও সম্মাননা। যারমধ্যে বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ড, চাকরি খুঁজবো না চাকরি দেব’র পক্ষ থেকে উদ্যোক্তা সম্মাননা ২০১৮, বাংলাদেশ বিজনেস ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড ২০১৯ উল্লেখযোগ্য। এ মুহূর্তে হ্যালোটাস্ক শুধু ঢাকা শহরে সার্ভিস দিলেও ভবিষ্যতে দেশব্যাপী সার্ভিস চালুর ইচ্ছা রয়েছে।

লেখক: ফিচার লেখক।

শেয়ার করুন :
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp

আপনার মন্তব্য করুন :