বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

গোমূত্র পান করি, তাই সুস্থ থাকি: পশ্চিমবঙ্গ বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ

পশ্চিমবঙ্গের বিরোধীদল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, আমরা গরুর দুধ এবং মূত্র পান করি বলেই সুস্থ থাকি। শুধু তাই নয়, সুস্থ থাকার জন্য গোমূত্র শরীরের ইমিউনিটি বৃদ্ধি করে। বৃহস্পতিবার রাজ্যের দুর্গাপুরে এক চা চক্র অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এসব মন্তব্য করেন।

এর আগে, গত বছরের নভেম্বরে গরুর দুধে সোনা সোনা পাওয়া যায় বলে মন্তব্য করে ভারতজুড়ে ব্যাপক আলোড়ন তুলেছিলেন পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির এই সভাপতি। যা নিয়ে দেশটিতে ব্যাপক বিতর্ক ও হাসিঠাট্টা শুরু হয়। আবারও একই ধরনের মন্তব্য করে আলোচনায় এসেছেন তিনি।

ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম বলছে, প্রায় প্রত্যেকদিন প্রাতঃভ্রমণে বের হন বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ। বৃহস্পতিবার প্রাতঃভ্রমণে বের হয়ে দুর্গাপুরে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে চা-চক্রে অংশ নেন তিনি।

এ সময় দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘আমি গরুর কথা বললে অনেকের শরীর খারাপ হয়ে যায়। লকডাউন খোলার পরই খুলে মদের দোকান চালু হয়েছে। তার জেরে কী হয়েছে, দেখতে পাচ্ছেন তো। যারা মদ খায়; তারা খাবে। আমরা গোমূত্র, গরুর দুধ পান করবো।’

এখানেই থামেননি তিনি; দলীয় কর্মীদের পরামর্শ দিতে গিয়ে বিজেপির এই নেতা বলেন, ‘আপাতত এক বছর কোনও পার্টি-টার্টি করবেন না। শুধু আয়ুর্বেদিক সেবন করুন। মনে করুন এক বছর উপবাস পালন করছেন। তাহলেই আপনি, আপনার পরিবার আর সমাজ সুস্থ থাকবে।’

দিলীপ ঘোষ সমাজ সুস্থ থাকার কথা মুখে বললেও দুর্গাপুরে তার দলের নেতাকর্মীদের গণ-জমায়েত নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। সমালোচকরা বলেছেন, একদল নেতাকর্মী নিয়ে দিলীপ ঘোষণ যখন এ ধরনের বক্তব্য দিয়েছেন, তখন তার মুখেই ছিল না মাস্ক। তবে বিজেপির রাজ্য সভাপতির মন্তব্য, আমরা সব নিয়ম মেনেই সভা-সমাবেশ করছি।

গোমূত্র পান নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে রাজ্যের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে গাধার সঙ্গে তুলনা করেছেন দিলীপ ঘোষ। তার কথায়, ‘তোমরা বোতলে ভরা মদ পান করো, আমরা গোমূত্র পান করে ভালো থাকবো। আমরা গরুকে মা বলি। তার সেবা করি। গাধারা গরুর কথা বুঝবে না!’

গত বছরের নভেম্বরে রাজ্যের বর্ধমান শহরের টাউন হলে ঘোষ এবং গাভি কল্যাণ সমিতির অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বিজেপির এই নেতা দাবি করেছিলেন, বিদেশি গরু গো মাতা নয়। আমাদের দেশি গরুর পিঠের কুঁজে সোনা থাকে। তাই দেশি গরুর দুধের রং সোনালি হয়। আর বিদেশি গরু তো হাম্বা হাম্বাও ডাকে না।

শেয়ার করুন :
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp

আপনার মন্তব্য করুন :