ঘর থেকে বের হলেই কামড়াচ্ছে কুকুর! | বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম – ঘর থেকে বের হলেই কামড়াচ্ছে কুকুর! ঘর থেকে বের হলেই কামড়াচ্ছে কুকুর! – বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম
ঘর থেকে বের হলেই কামড়াচ্ছে কুকুর! – বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম

ঘর থেকে বের হলেই কামড়াচ্ছে কুকুর!

প্রকাশ: ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:২০ : অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক :: নোয়াখালীর সেনবাগে একটি পাগলা কুকুরের কামড়ে নারী,পুরুষ,শিশুসহ ১৭জন আহত হয়েছে। শুক্রবার উপজেলার ডমুরুয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের জিরুয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় ইউপি সদস্য, আবুল কালাম আজাদ জানান, সকাল সাতটা থেকে শুরু করে ১১টা পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে পাগলা কুকুর স্থানীয় এলাকার কয়েকটি বাড়ির ১৪ জনকে কামড় দেয় পরে সকাল ১১টার দিকে ৩জন পথচারীকে কামড় দেয়।

তিনি আরো জানান, আজাদ মেম্বার বাড়ির ৩জন, আলী আকবর মেম্বার বাড়ির ৬জন, খুরশিদ নেতার বাড়ির ২জন, দক্ষিণ বেরুয়া গ্রামের ডাক্তার ফারুকের বাড়ির ১জন, জিরুয়া পশ্চিম পাড়ার মমিন মিয়ার বাড়ির ১জন, ২জন শিশু এবং ৪নং কাদরা ইউনিয়নের পানির গ্রামের ২জন বাসিন্দা ফকিরহাট বাজারে যাওয়ার পথে পাগলা কুকুর তাদেরকেও কামড় দেয়।

ইউপি সদস্য আরো জানান, অনেকই কুকুরের কামড়ে আক্রান্ত হয়ে সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ বিষয়ে সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ফোনে যোগাযোগ করা হলে মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এছাড়াও টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে এক শিশুকে শিয়ালের হাত থেকে বাঁচাতে মাসহ ১১জন আহত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার বাগবাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এছাড়া একই উপজেলায় কুকুর ও বিড়ালের কামড়ে আরো ৩ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

শিয়ালের কামড়ে আহত ১১ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৪জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আহতরা হলেন- উপজেলার বাগবাড়ি গ্রামের গীতা রানী ও তার মেয়ে বৃষ্টি (২), রমা রানী, জয়নব বেগম, লাকি আক্তার, রোজিনা বেগস, কুলসুম, হাবিবুর রহমান, নুরজাহান, মুন্নাফ ও দেলোয়ার হোসেন। এছাড়া একই উপজেলার ঘাটান্দি ও জোতআতাউল্ল্যা গ্রামে কুকুর ও বিড়ালের কামড়ে আহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. তৌফিক এলাহি বলেন, উপজেলার বাগবাড়ি এলাকায় গীতা রানীর শিশু মেয়ে বৃষ্টি বাড়ির উঠানে খেলাধুলা করছিল। এ সময় একটি শিয়াল শিশুটিকে খেয়ে ফেলার উদ্দেশ্য এগিয়ে আসে।

পরে শিশুটির মা গীতা শিয়াল দেখে এগিয়ে আসলে তার উপর শিয়াল ছাপিয়ে পড়ে। এতে সে গুরুত্বর আহত হয়। পরে শিয়ালটি পালানোর সময় সামনে যাকে পেয়েছে তাকেই কামড়িয়ে আহত করেছে। এতে ১১জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে ৪ জনকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, শিয়াল কামড়ের ইনজেকশন হাসপাতালে সরবরাহ নেই। অনেক বাইরে থেকে তা এনে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে গেছেন।


সকল নিউজ