বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

চরফ্যাশনে এক দলীলেই সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে ৬ লাখ টাকা

চরফ্যাশন প্রতিনিধি :: ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার সদর সাব-রেজিষ্টার অফিসের দলীল লেখক হারুন অর রশিদের বিরুদ্ধে এক দলীলেই সরকারি ৬লাখ টাকার রাজস্ব হারানোর অভিযোগ উঠেছে। সোমবার সরেজমিন গিয়ে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

সূত্রে জানা গেছে, চরফ্যাশন পৌর সভার ৫নং ওয়ার্ড শরীফ পাড়ার জিন্নগড় মৌজার ব্যবসায়ী ছালাউদ্দিনের ৪তলা বিশিষ্ট ৪শতক জমির বিক্রি হয়েছে। ২২সেপ্টেম্বর/২০ তারিখে ৮২লাখ টাকায় বশির মাওলানা গংদের সাথে বায়না চুক্তি হয়েছে। জমিটি ১৮ নভেম্বর/২০ তারিখ বুধবার বিকালে দলিল লেখক হারুন অর রশিদের( যার লাইসেন্স সনদ নং ৪০ ডবিøকেট সনদ নং ৬১) মাধ্যমে ২লাখ ১৬হাজার টাকা বয়মূল্য নির্ধারন করে রেজিষ্টার কার্যক্রম সম্পন্ন হয়। দলীলনং হল ৬০৫৪।

সরকারি হিসাবে ৮২লাখ টাকা পৌর কর ২%আসে ১লাখ ৬৪লাখ টাকা, স্থাণীয় কর ৩% হয় ২লাখ ৪৬হাজার টাকা, ষ্ট্যাম্প দেড় ১লাখ ২৩টাকা, রেজিঃ ফ্রি ১% আসে ৮২হাজার টাকা। সর্ব মোট ৬লাখ ১৫হাজার টাকা রাজস্ব আসে। সরকারের রাজস্ব ফাকি দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমেদলিল লেখক ২লাখ ১৬হাজার টাকা মাট রাজস্ব আসে ১৬হাজার ২শ টাকা। এতে সরকার মোট ৮২লাখ টাকার বয়মূল্যের হিসাবে প্রায় ৬লাখ টাকাই রাজস্ব থেকে বঞ্চিত রয়েছে। জমি দাতা চরফ্যাশন বাজার ব্যবসায়ী ছালাউদ্দিন বলেন, ২মাস পূর্বে জমির বায়না চুক্তি হয়েছে। তারা আমার কাছ থেকে জমি ক্রয় করে ৯৫লাখ টাকা বিক্রি করেছে। চরফ্যাশন দলিল লেখক সমিতির সভাপতি আলহাজ্জ জসিম উদ্দিন পাটওয়ারী বলেন, আমরা বিষয়টি অবগত হয়ে বৃহম্পতিবার জরুরী সভা করে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

চরফ্যাশন উপজেলা সাবরেষ্টার সামছুল আলম বলেন, তাকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়েছে। অফিস খোলার তারিখে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই ব্যপারে দলিল লেখক হারুন অর রশিদ বলেন, আমার দলীল লেখায় কোন ভ‚ল নেই। সরকারি রাজস্ব ফাকি দেয়া হয়নি। ওই জমির উপর ৪তলা ভবন আছে তা আমার জানা নেই।

শেয়ার করুন :
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp

আপনার মন্তব্য করুন :