বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

বরগুনায় শিক্ষক স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করে বিপাকে স্ত্রী

রেজাউল করিম, আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি :: শিক্ষক স্বামী মো. ফয়জুল হকের বিরুদ্ধে যৌতুক মামলা করে বিপাকে পড়েছেন স্ত্রী লাকি বেগম। স্বামীর স্বজনরা মামলা তুলে নিতে বিভিন্ন রকম ভয় ভীতি দেখাচ্ছে বলে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালে তালতলী উপজেলার বড়পাড়া গ্রামের আলী আহম্মদ সিকদারের ছেলে তালুকদার পাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. ফয়জুল হক এর সাথে আমতলীর চাওরা ইউনিয়নের চলাভাঙ্গা গ্রামের নজরুল ইসলামের মেয়ে লাকীর সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় লাকীর বাবা নজরুল ইসলাম জামাতা ফয়জুলকে মোটর সাইকেল, পাঁচ ভরি স্বর্ণাংলকারসহ ছয় লক্ষ টাকার আসবাবপত্র দেন। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই স্বামী ফয়জুল হক পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে। স্বামীর পরকীয় বাঁধা দিলে স্ত্রী লাকির উপর নেমে আসে অমানষিক নির্যাতন। এ নিয়ে কয়েক দফা স্থানীয়ভাবে শালিস বৈঠক হয়েছে কিন্তু কোন সুরহা হয়নি। গত এক মাস পূর্বে স্বামী ফয়জুল হকের পরকীয়ায় বাঁধা দিলে সে স্ত্রী লাকীকে নির্যাতন করে ঘড়ে আটকে রাখে এবং তার বাবার বাড়ী থেকে জমি রাখার জন্য ৬ লক্ষ টাকা য়ৌতুক দাবী করে। এ টাকা দিতে অস্বীকার করায় বেধরক মারধর করে। খবর পেয়ে লাকীর স্বজনরা উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে আসে। এ ঘটনায় লাকি বাদী হয়ে শিক্ষক যৌতুক লোভী স্বামী ফয়জুলের বিরুদ্ধে রবিবার আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন এবং যৌতুক নিরোধ আইনে মামলা দায়ের করেন। আদালতের বিচারক মো. সাকিব হোসেন মামলাটি আমলে নিয়ে তালতলী থানার ওসিকে আসামী ফয়জুলকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেন। তালতলী থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান মামলার প্রধান আসামী ফয়জুলকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায়। ফয়জুলের বিরুদ্ধে মামলা করে জেল হাজতে পাঠানোয় ক্ষিপ্ত হয়ে তার বড় ভাই আলআমিন সিকদার। সে লাকীকে মামলা তুলে নিতে নানা রকমের ভয় ভীতি দেখাচ্ছে। মামলা তুলে না নিলে তাকে ঘর লুটের মামলা দিয়ে তাকে জেল খাটানোরও ভয় দেখাচ্ছে।

এ বিষয়ে ফয়জুলের বড় ভাই অভিযুক্ত আল-আমিন সিকদার হুমকি দেওয়ার কথা অস্বীকার করেছে। তালতলী তালুকদারপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু তাহের বলেন, শিক্ষক হয়ে হাজতে যাওয়ায় তাকে সাময়িক বরখান্ত করা হবে।

তালতলী থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান বলেন, লাকীকে মামলা তুলে নিতে হুমকি দেওয়ার বিষয়ে আমার জানা নেই। এ বিষয়ে অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন :
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp

আপনার মন্তব্য করুন :