বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

বরিশালে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়া নিয়ে আ’লীগের দুপক্ষে সংঘর্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক ::: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তার ম্যুরালে আগে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরে ওই ঘটনার জের ধরে পাতারহাট সরকারি রসিক চন্দ্র (আরসি) কলেজ অডিটোরিয়ামে ভাঙচুর চালানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দিতে গিয়ে এ ঘটনার সূত্র পাত বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, স্থানীয় সংসদ সদস্য পংকজ নাথ এবং তার বিরোধী পক্ষের অন্যতম উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র কামাল উদ্দিন খানের সমর্থকরা আগে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। ওই ঘটনার জের ধরে একপক্ষের সমর্থকরা আরসি কলেজে কর্মসূচি চলাকালে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হলরুমে ঢুকে চেয়ার ও বেঞ্চ ভাঙচুর করেন। এসময় তারা এমপি সমর্থকদের খুঁজতে থাকেন। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

এমপি পংকজ নাথের অনুসারী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সুমন ফরাজি বলেন, আমরা দলীয় কার্যালয় থেকে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বের করা র্যালিতে অংশ নিই। পৌর মেয়র কামাল উদ্দিন খানের দুই ছেলে এবং তাদের অনুসারীরা র্যালিতে ঢুকে আমাদের উসকানিমূলক কথাবার্তা বলতে থাকেন। পরে আমরা উপজেলা চত্বরে ফুল দিতে গেলে মেয়র কামাল উদ্দিন খান, তার দুই ছেলে রিমন খান, রিয়াদ খানসহ অনুসারীরা বাধা দেন। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। পরে মেয়র ও তার লোকজন উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে আমাদের মারধর শুরু করে। পরে আমরাও তাদের প্রতিহত করার চেষ্টা করি।

এমপি বিরোধীপক্ষের অন্যতম উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রকিব বলেন, উপজেলা চত্বরে গিয়ে আমরা ফুল নিয়ে সারিবদ্ধভাবে অপেক্ষা করছিলাম। হঠাৎ করে এমপির অনুসারী সোহেল ও সুমন আমাদের আগে চলে যায়। একপর্যায়ে তারা হামলা করে। তাদের অনেকের হাতে হাতুড়ি ছিল।

আরসি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আসাদুজ্জামান অভি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে কলেজে কর্মসূচি চলাকালে বেলা সাড়ে ১১টায় মেয়র কামাল খানের দুই ছেলেসহ শতাধিক কর্মী এসে হলরুমে ঢুকে চেয়ার, বেঞ্চ ছুঁড়ে মারে ও এমপি সমর্থকদের খুঁজতে থাকে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

আরসি কলেজ অধ্যক্ষ এ বি এম মাবুবুল হক বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে কলেজে কর্তৃপক্ষ আলোচনা সভাসহ নানা কর্মসূচির আয়োজন করে। কর্মসূচি চলাকালে বহিরাগত কিছু লোক কলেজে ঢুকে বিশৃঙ্খলা ঘটানোর চেষ্টা করে। তারা চেয়ার, বেঞ্চ ভাঙচুর শুরু করে। কিছুক্ষণের মধ্যে পুলিশ এসে বহিরাগতদের ধাওয়া দিয়ে সরিয়ে দিয়েছে। এসময় সাধারণ শিক্ষার্থীরা কিছুটা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে দৌড়াদৌড়ি করেছে।

মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র কামাল উদ্দিন খান বলেন, উপজেলা পরিষদ চত্বরে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়ার জন্য অপেক্ষা করছিলাম। এসময় এমপি পংকজ নাথ সমর্থিত যুবলীগ-স্বেচ্ছাসেবক লীগ নামধারী একদল যুবক এসে হাতুড়ি ও রড নিয়ে আমাদের ওপর হামলা করেছে। আমাদের ছেলেরাও তাদের প্রতিরোধ করে।

পাতারহাট সরকারি রসিক চন্দ্র (আরসি) কলেজে ভাঙচুর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ওই কলেজে প্রায়ই গণ্ডগোল হয়। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কলেজের ভেতরে গণ্ডগোল হচ্ছিল। এসময় আমার দুই ছেলেসহ অন্যরা কলেজের পাশ দিয়ে যাচ্ছিল। তারা কলেজে ভেতরে ঢুকে ঝামেলা সৃষ্টকারীদের শান্ত করে। দলীয় প্রতিপক্ষরা হামলার ঘটনা ভিন্নখাতে নিতে আমাদের বিরুদ্ধে কলেজের চেয়ার, টেবিল ও বেঞ্চ ভাঙচুরের অভিযোগ করছে।

মেহেন্দিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে প্রথমে উপজেলা প্রশাসন এরপর পুলিশের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। তারপর স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। এর পরপরই আওয়ামী লীগের দুপক্ষই ফুল দেওয়ার জন্য এগিয়ে যায়। আগে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে তারা ধাক্কাধাক্কি ও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে। পুলিশ দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

শেয়ার করুন :
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp