বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

বরিশালে সন্ত্রাসীদের উৎপাতে পথে বসতে শুরু করেছেন পল্ট্রি ব্যাবসায়ী বাদল

নিজস্ব প্রতিবেদক ::: বরিশাল নগরীর ২৪নং ওয়ার্ডস্থ মান্নান খান সড়কে একদল সন্ত্রাসীদের উৎপাতে পথে বসতে শুরু করেছেন পল্ট্রি ব্যাবসায়ী রাশেদ খান বাদল। সম্প্রতি ব্যাবসায়ী বাদলের বাড়িতে গিয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে উৎখাত করতে অকথ্য ভাষায় গালাগালি ও পরিবারসহ বাদলকে হত্যা হুমকি দিয়েছেন ওই এলাকার সোহবার আলী খান, তার বড় ছেলে রুবেল খান, তার মেজ ছেলে সাদ্দাম খান, ছোট ছেলে বাবু খান। এ ঘটনায় গতকাল রাতে কোতয়ালী মডেল থানায় লিখিত একটি অভিযোগ দিয়েছেন ব্যাবসায়ী বাদল।

ব্যাবসায়ী বাদল নগরীর ২৪নং ওয়ার্ডস্থ মান্নান খান সড়কের মো: কাঞ্চন আলী খানের ছেলে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়- সোহবার আলী খানের সাথে বাদলদের দীর্ঘদিন যাবত পারিবারিক বিরোধ চলে আসেছে। সেই বিরোধের জেরে বিভিন্ন সময় সোহবার আলী খান ও তার ছেলেরা ব্যাবসায়ী বাদলের পরিবারকে হয়রানি করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার (৪ নভেম্বর) সকাল ১০ টার দিকে বাদলের বাড়ির সামনের পুকুরে একটি ময়লাযুক্ত গাড়ী ধৌত করতে আসে সাদ্দাম খান। তখন তাকে ময়লা ধুতে নিষেধ করলে সোহবার আলী খান, তার বড় ছেলে রুবেল খান, তার মেজ ছেলে সাদ্দাম খান, ছোট ছেলে বাবু খান দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ব্যাবসায়ী বাদলের বাড়িতে আসেন। এরপর বাদলের পরিবারকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি শুরু করেন। বাদলের বাবা মো: কাঞ্চন আলী খান এর প্রতিবাদ করলে তাকে মারধরের জন্য উদ্যত হয় সোহবার আলী খানের ছেলেরা। এসময় স্থানীরা ঘটনাস্থলে ছুটে আসলে বাদলের পরিবারকে খুন জখমের হুমকি দিয়ে চলে যায় সন্ত্রাসীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে- সোহবার আলী খানের ছেলেরা ওই এলাকায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে। এছাড়াও তার ছেলেদের বিরুদ্ধে মাদক সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে।

এ ব্যাপারে ব্যাবসায়ী বাদল জানান- সোহবার আলী খান ও তার ছেলেরা দীর্ঘদিন যাবত আমিসহ আমার পারিবারকে হয়রানি করে আসছে। তাদের উৎপাতে আমার ব্যবসা বন্ধ রয়েছে। এমনকি তাদের ভয়ে আমার পরিবারের লোক বাহিরে বের হতে পারছেনা। আমি এবং আমার পরিবার এই সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা পেতে চাই।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সাদ্দাম খানের মুঠোফোনে কল দিলে তিনি বলেন- মুঠোফোনে কি বলব, আপনি ঘটনাস্থলে আসেন। সামনাসামনি কথা বলবো।

এ বিষয়ে কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিমুল করিম বলেন- অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন :
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp