বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

বরিশালে স্কুলছাত্রীকে উত্যক্তের অভিযোগ দেয়ায় পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলা

বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডেস্ক :: বরিশাল সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ৭ শ্রেণির এক ছাত্রীকে প্রেম প্রোস্তাব দিয়ে উত্যক্ত করার প্রতিবাদে থানায় অভিযোগ দেওয়ায় পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালায় উত্যক্তকারীরা। হামলায় ঘটনায় স্কুল ছাত্রীর মা শাহানা সুলতানা বাদি হয়ে ২৩ জুলাই বরিশাল মেট্রোপলিটন কাউনিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। কাউনিয়া থানার মামলা নম্বর-৮। এ ঘটনায় স্ব-রোড মোহনা ক্লাব এলাকার পরিমলের পুত্র পোষণসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মামলার আসামীরা হলো- র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হওয়া বরিশাল নগরীর একসময়ের শীর্ষ সন্ত্রাসী ফারুক আহম্মেদ ওরফে পানামা ফারুকের ছোট ভাই মনা আহমেদ (৪২) ও মনা আহমেদের ছেলে তাবিব আহম্মেদ (১৯)। মামলার অন্যান্য আসামীরা হলো, নগরীর নতুন বাকলা এলাকার রাহাত (ছোট রাহাত) (১৯), স্ব-রোড মোহনা ক্লাব এলাকার পরিমলের পুত্র পোষণ (২০) ও স্ব-রোড নতুন বাকলা এলাকার ভাড়াটিয়া জীবনের পুত্র জয় (১৯)সহ অজ্ঞাতনামা ৩ থেকে ৪ জন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বরিশাল সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ৭ শ্রেণীর ছাত্রী নগরীর স্ব-রোড নতুন বাকলা এলাকার শাহানা সুলতানার ১২ বছরের মেয়েকে স্কুলে যাওয়ার পথে ও লকডাউনের মধ্যে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় মামলার ১, ৩, ৪ ও ৫ নম্বর আসামীরা প্রায় সময় উত্যক্ত করে ও প্রেমের প্রস্তাব দেয়। উত্যক্তের প্রতিবাদে কাউনিয়া থানায় একটি অভিযোগ দেন স্কুল ছাত্রীর মা শাহানা বেগম। থানায় অভিযোগ দেয়ার কারনে আসামীরা স্কুলছাত্রীর পরিবারের উপর শত্রুতা পোষণ করে ক্ষিপ্ত হয় এবং আক্রোশ পোষণ করে। এরই ধারাবহিকতায় স্কুলছাত্রীর বাবা ও চাচা দাড়িয়ে কথা বলার সময় সকল আসামীরা দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র, রামদা, ছেনা, লোহার রড ও হকস্টিক নিয়ে ঘিরে ধরে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই মামলার ১ নম্বর আসামী পানামা ফারুকের ভাইয়ের ছেলে তাবিব আহম্মেদ থাোয় অভিযোগের কারণ জানতে চায়। একপর্যায়ে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তাদের উপর হামলা করে। হামলায় স্কুলছাত্রীর বাবা ও চাচা গুরুতর আহত হয়।

হামলার শিকার হয়ে স্কুল ছাত্রীর বাবা ও চাচা চিৎকার দিলে মামলার বাদি স্কুল ছাত্রীর মাসহ স্থানীয়রা ছুটে এলে সন্ত্রাসীরা মামলা না করার হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়।

পালিয়ে যাওয়ার সময় আসামিরা স্কুল ছাত্রীর বাবার গলায় থাকা ৭০ হাজার টাকার মূল্যের চেইন ও হাতে থাকা ৩৫ হাজার টাকা মূল্যের একটি স্বর্ণের ব্রেসলেট ছিনিয়ে নেয়। এছাড়াও স্কুলছাত্রীর চাচার গলায় থাকা ৩৫ হাজার টাকা মূল্যের একটি চেইন ও হাতে থাকা ২০ হাজার টাকা দামের একটি মোবাইল ছিনিয়ে নেয়।

কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিমুল করিম বলেন, মামলার তদন্তে সত্যতা পাওয়ায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এবং বাকি আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মামলার মাদী স্কুলছাত্রীর মা তার স্বামী ও দেবরের উপর হামলার সুষ্ঠু বিচার চেয়েছেন।

শেয়ার করুন :

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp

আপনার মন্তব্য করুন :

আমাদের সকল আপডেট পেতে মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন প্লে-ষ্টোর থেকে।