বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম – বাকেরগঞ্জে দূর্নীতির দায়ে কলেজের অধ্যক্ষ বরখাস্ত
প্রকাশিতঃ May 09, 2019 8:51 PM
A- A A+ Print

বাকেরগঞ্জে দূর্নীতির দায়ে কলেজের অধ্যক্ষ বরখাস্ত

ক্রাইম নিউজ ডেস্ক ॥ বাকেরগঞ্জের বাদলাপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ মজিবর রহমান রাজাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। স্বাক্ষর জালিয়াতি, অবৈধ ব্যাংক লেনদেন, ক্যাশের টাকা আত্মসাৎ চেস্টা সহ বেশ কয়েকটি অভিযোগে তাকে এই শাস্তি প্রদান করা হয়। গতকাল ৯ মে থেকে এই শাস্তি কার্যকর বলে জানিয়েছেন কলেজ কমিটির বিদ্যোৎসাহী সদস্য আমিনুল মোহাইমেন চুন্নু।

এর আগে তার বিরূদ্ধে এসব অভিযোগ ওঠায় তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন আমিনুল মোহাইমেন চুন্নু, জাকির হোসেন হাওলাদার ও হালিম হাওলাদার। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট প্রদানের পরে অভিযোগের সত্যতা মেলায় অধ্যক্ষের বিরূদ্ধে চার্জ গঠন করে তাকে সাময়িক বরখান্ত করা হয়। জানা গেছে, চরামদ্দি সোনালী ব্যাংকে কলেজের একাউন্ট নং ১৬৪৭ এর পরিচালনার জন্য কলেজ কমিটির সভায় সিদ্ধান্তপূর্বক রেজুলেশন ছিল অধ্যক্ষ ও কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন এর নামে।

অধ্যক্ষ সেখানে আনোয়ার হোসেন কেটে আমির হোসেন বানিয়ে সভাপতির নমুনা স্বাক্ষর জাল করে তা ব্যাংকে জমাদেন এবং এভাবে লেনদেন করেন। তাছাড়া নগদ ক্যাশ থেকে তিনি ৮২ হাজার টাকা নিয়েছেন যার কোন ভাউচার জমা দেননি।

এসব দুর্নীতির খবরে এলাকায় চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। অভিভাবক, শিক্ষার্থী, এলাকাবাসী এমন দুনীতির আরো বিশদ তদন্ত ও দৃস্টান্তমূলক শাস্তি দাবী জানিয়েছে।

এদিকে এসব বিষয়ে অধ্যক্ষ মজিবর রহমান রাজা বলেন, আমি কমিটির গ্রুপিং দ্বন্দ্বের শিকার। কিছু লোক ষড়যন্ত্র করে আমাকে ফাঁসাতে চাচ্ছে। তাছাড়া বরখাস্তের বিষয়ে এখনো কোন চিঠি আমি হাতে পাইনি।

 বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম

বাকেরগঞ্জে দূর্নীতির দায়ে কলেজের অধ্যক্ষ বরখাস্ত

Thursday, May 9, 2019 8:51 pm

ক্রাইম নিউজ ডেস্ক ॥ বাকেরগঞ্জের বাদলাপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ মজিবর রহমান রাজাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। স্বাক্ষর জালিয়াতি, অবৈধ ব্যাংক লেনদেন, ক্যাশের টাকা আত্মসাৎ চেস্টা সহ বেশ কয়েকটি অভিযোগে তাকে এই শাস্তি প্রদান করা হয়। গতকাল ৯ মে থেকে এই শাস্তি কার্যকর বলে জানিয়েছেন কলেজ কমিটির বিদ্যোৎসাহী সদস্য আমিনুল মোহাইমেন চুন্নু।

এর আগে তার বিরূদ্ধে এসব অভিযোগ ওঠায় তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন আমিনুল মোহাইমেন চুন্নু, জাকির হোসেন হাওলাদার ও হালিম হাওলাদার। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট প্রদানের পরে অভিযোগের সত্যতা মেলায় অধ্যক্ষের বিরূদ্ধে চার্জ গঠন করে তাকে সাময়িক বরখান্ত করা হয়। জানা গেছে, চরামদ্দি সোনালী ব্যাংকে কলেজের একাউন্ট নং ১৬৪৭ এর পরিচালনার জন্য কলেজ কমিটির সভায় সিদ্ধান্তপূর্বক রেজুলেশন ছিল অধ্যক্ষ ও কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন এর নামে।

অধ্যক্ষ সেখানে আনোয়ার হোসেন কেটে আমির হোসেন বানিয়ে সভাপতির নমুনা স্বাক্ষর জাল করে তা ব্যাংকে জমাদেন এবং এভাবে লেনদেন করেন। তাছাড়া নগদ ক্যাশ থেকে তিনি ৮২ হাজার টাকা নিয়েছেন যার কোন ভাউচার জমা দেননি।

এসব দুর্নীতির খবরে এলাকায় চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। অভিভাবক, শিক্ষার্থী, এলাকাবাসী এমন দুনীতির আরো বিশদ তদন্ত ও দৃস্টান্তমূলক শাস্তি দাবী জানিয়েছে।

এদিকে এসব বিষয়ে অধ্যক্ষ মজিবর রহমান রাজা বলেন, আমি কমিটির গ্রুপিং দ্বন্দ্বের শিকার। কিছু লোক ষড়যন্ত্র করে আমাকে ফাঁসাতে চাচ্ছে। তাছাড়া বরখাস্তের বিষয়ে এখনো কোন চিঠি আমি হাতে পাইনি।

সম্পাদক ও প্রকাশক : খন্দকার রাকিব ।
ফকির বাড়ি, ৫৫৪৫৪ বরিশাল।
মোবাইল: ০১৭২২৩৩৬০২১
ইমেইল : [email protected], [email protected]