বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

বাড়ির সামনে বেড়া দেয়ায় অসহায় হয়ে পড়েছে দরিদ্র পরিবারটি

অনলাইন ডেস্ক :: নওগাঁর বদলগাছীতে পূর্বশত্রুতার জেরে দরিদ্র এক পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন স্থানীয় প্রভাবশালীরা। বাড়ি থেকে বের হতে না পেরে অসহায় হয়ে পড়েছে দরিদ্র আব্দুস সালামের পরিবার।

সাবেক ইউপি সদস্য মফের আলীর ছেলে সোহেল রানা উপজেলার বালুভরা ইউনিয়নের কুশারমুড়ি গ্রামে গত দুইদিন থেকে বাড়ির দুই পাশে চলাচলের রাস্তায় বেড়া দিয়েছেন। তাদের অত্যাচারে অতিষ্ট এলাকাবাসী। অসহায় আব্দুস সালাম প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুশারমুড়ি গ্রামের প্রভাবশালী সাবেক ইউপি সদস্য মফের আলীর ছেলে সোহেল রানা দরিদ্র আব্দুস সালামের স্ত্রীকে দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্নভাবে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন।

দুই মাস আগে আব্দুস সালামের বাড়িতে মাদক আছে অপবাদ দিয়ে তাকে ও তার স্ত্রীকে মারপিট করেন সোহেল রানা। এ ঘটনায় থানায় সোহেল রানাসহ পাঁচজনকে আসামি করে নারী নির্যাতনের মামলা হয়।

মামলায় সোহেল রানাকে আটক করে জেলহাজতে পাঠায় থানা পুলিশ। ১২ দিন হাজতবাস করে জামিনে বেরিয়ে আসেন সোহেল রানা। এরপর মামলা তুলে নিতে আসামিরা বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের।

সর্বশেষ শনিবার (২১ নভেম্বর) আব্দুস সালামের বাড়ির উত্তর ও দক্ষিণ পাশে চলাচলের রাস্তায় সোহেল রানা তার লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে বাঁশের বেড়া দিয়েছেন। এতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে আব্দুস সালামের পরিবারের ৬ সদস্য।

দরিদ্র অসহায় পরিবারটি বাড়ি থেকে বের হতে পারছে না। খেটে খাওয়া পরিবারটির এখন প্রায় উপোশ থাকার অবস্থা।

কুশারমুড়ি গ্রামের ভুক্তভোগী আব্দুস সালাম বলেন, প্রভাবশালী মফের আলীর ছেলে সোহেল রানা দীর্ঘদিন তার পরিবারের উপর বিভিন্নভাবে অত্যাচার করে আসছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলাও হয়েছে। মামলার পর তারা আরও বেপারোয়া হয়ে পড়েছে।

তিনি বলেন, মামলা তুলে নিতে এখন হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে। মামলা তুলে না নেয়ায় তারা শনিবার বাড়ির দুই পাশে চলাচলের রাস্তায় বাঁশের বেড়া দিয়েছে। এতে বাড়ি থেকে বের হতে পারছিনা।

একই গ্রামের সাজ্জাদ হোসেন বলেন, তারা (সোহেল রানা) প্রভাবশালী হওয়ায় আমাদের জমি জোরপূর্বক দখলে নিতে চায়। এনিয়ে গত দুই বছরের অধিক সময় ধরে মামলা চলছে। তারা কোনো কিছুকে তোয়াক্কা করে না।

এদিকে অভিযুক্ত সোহেল রানা হুমকি ধামকি দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কাউকে অবরুদ্ধ করতে নয় বরং কবরস্থান রক্ষায় বাঁশের বেড়া দেয়া হয়েছে।

এতোদিন কেন বেড়া দেননি এমন প্রশ্নের কোনো উত্তর তিনি দেননি।

স্থানীয় বালুভরা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মো. আয়েন উদ্দীন বলেন, ঘটনাস্থল দেখেছেন। একটি বাড়ির সামনে চলাচলের পথে বেড়া দিয়ে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা ঠিক হয়নি। দুই পক্ষ যদি আসে আপোষ করে একটি ফায়সালার ব্যবস্থা করা হবে।

বদলগাছী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চৌধূরী জোবায়ের আহাম্মদ বিষয়টি অবগত নন বলে জানান। তবে অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন :
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp

আপনার মন্তব্য করুন :