বরিশাল ক্রাইম নিউজ

বরিশাল ক্রাইম নিউজ

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা

Print Friendly, PDF & Email

বেতাগীর বিরোধপূর্ন জমিতে রাতের আধাঁরে ঘর উত্তোলন!

সাইফুল ইসলাম, বেতাগী (বরগুনা) প্রতিনিধি:: বরগুনার বেতাগীর ১ নম্বর বিবিচিনি ইউনিয়নে জমিজমা নিয়ে বিরোধ থাকায় প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে দফায় দফায় মারধর করা হয় এবং মামলা ও পাল্টা মামলা করা হয়। প্রতিপক্ষরা রাতের আধাঁরে বিরোধপূর্ন জমিতে ঘর উত্তোলন করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগ ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বিবিচিনি ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের পশ্চিম বিবিচিনি গ্রামের মো. ইদ্রিস আলী মৃধা’র সাথে জেএল নম্বর বিবিচিনি মৌজার এম.এ -১০৭৪ খতিয়ানের দাগ নং ৯৮৬ জমিতে গত ১৯ মার্চ ২০২০ খ্রি. তারিখে তাদের প্রতিপক্ষ চাচাতো ভাই নান্টু মৃধা ও হানিফ মৃধা লোকজন নিয়ে রাতের আঁধারে ঘর উত্তোলন করেন। বাঁধা দিলে সংঘর্ষ হয়। এতে শমসের মৃধা (৫৫) কে খুন করার উদ্দেশ্য শরীরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয় এবং রক্তাক্ত জখম হয়। তাকে বেতাগী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করানো হয়।

এ ঘটনায় গত ১৯ মার্চ ২০২০ খ্রি. ইদ্রিস আলী মৃধা বাদী হয়ে ১৮ জনের নাম উল্লেখ এবং আরো ২০/২৫ অজ্ঞাত উল্লেখ করেন। প্রতিপক্ষ মো. নান্টু মিয়া ১০৮০ খতিয়ানের দাগ নম্বর ১১৪০ জমিতে ইট, বালি, সিমেন্ট নিয়ে পাকা ভবন করার পরিকল্পনা করছে। পরিকল্পনা জানতে পেরে ইদ্রিস আলী মৃধা বরগুনা বিজ্ঞ অতিরিক্ত ম্যাজিস্টেট আদালতে ফৌজধারী কার্যবিধি আইনের ১৪৪/১৪৫ ধারা মতে গত ২৭ জুলাই ২০২০ খ্রি. তারিখে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করেন। বেতাগী থানায় মামলা নম্বর ৪৬/২০২০।

বরগুনা বিজ্ঞ ম্যাজিষ্টেট আদালত থেকে গত ১৬ জুলাই ২০২০ খ্রি. তারিখ তদন্ত প্রতিবেদন প্রেরনের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারহানা ইয়াসমিনকে নির্দেশ প্রদান করেন। গত ৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রি. তারিখ বরগুনার বেতাগী ম্যাজিস্টেট আদালতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারহানা ইয়াসমিন স্বাক্ষরিত মামলাটি খারিজযোগ্য বলে বিজ্ঞ আদালতের কাছে তথ্য প্রেরণ করেন এবং বিজ্ঞ আদালতের পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে প্রতিবেদন প্রেরণ করেন। মো. ইদ্রিস আলী মৃধা বলেন, বিরোধপূর্ন জমিতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সঠিক তদন্ত না করে এবং দাগ নং ১১৪০ এর জমির চৌহদ্দিতে প্রাপ্য থাকা সত্তে¡ও এক তরফাভাবে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

এ বিষয় অভিযুক্ত নান্টু মৃধা বলেন, ওই জমিতে আমাদের প্রাপ্য রয়েছে। আমরা আমাদের জমিতে ঘর উত্তোলন করেছি।

সহাকরী কমিশনার (ভূমি) ফারহানা ইয়াসমিন বলেন, কাগজপত্রের আলোকে যতটুকু সত্যতা পেয়েছি, তাঁর উপর ভিত্তি করে তদন্ত প্রতিেিবদন পাঠিয়েছি।

শেয়ার করুন :
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp

আপনার মন্তব্য করুন :