মঠবাড়িয়ায় মাদ্রাসা ভবন নির্মানে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ | বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম – মঠবাড়িয়ায় মাদ্রাসা ভবন নির্মানে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ মঠবাড়িয়ায় মাদ্রাসা ভবন নির্মানে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ – বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম


মঠবাড়িয়ায় মাদ্রাসা ভবন নির্মানে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ

প্রকাশ: ১১ জুলাই, ২০১৯ ৮:৫১ : অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার সূর্যমনি হাচানিয়া দাখিল মাদ্রসার ৪ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ভবন বর্ধিতকরণ নির্মান কাজে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।এলাকাবাসী এবং মাদ্রাসা কতৃপক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে নির্মান কাজে দায়িত্বপ্রাপ্ত ইন্জিনিয়ার শাহাদাত হোসেন সরেজমিনে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে মৌখিক নির্দেশে কাজ বন্ধ করে দেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়,উপজেলার সূর্যমনি হাচানিয়া দাখিল মাদ্রাসায় ভবন নির্মানের জন্য ৩০/০৪/১৯ ইং তারিখের ওয়ার্ক অর্ডার অনুযায়ী রামিশা এন্টারপ্রাইজ নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নির্মান কাজ শুরু করে। কাজের শুরুতেই নিম্নমানের নির্মান সামগ্রী দিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে নির্মান কাজ চালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ কাজ বন্ধ করে দেয়।কিন্তু রহস্যজনক কারণে মঙ্গলবার (৯ জুলাই) সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষকে কোন কিছু না জানিয়েই পুনরায় কাজ শুরু করায় এলাকাবাসী,ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক এবং মাদ্রাসা কতৃপক্ষের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

মাদ্রাসার সুপার আব্দুল আজিজ জানান,”কাজ বন্ধ রাখতে বলা হয়েছিল এটা সত্য। তবে এখন নাকি ভাল মানের মালামাল দিয়ে কাজ শুরু করেছে। আমাদেরতো নির্মান কাজের ভাল মন্দ বোঝার অভিজ্ঞতা নেই। ইন্জিনিয়ার ভাল মন্দ বুঝতে পারবে।”

মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আমজাদ হোসেন জানান,”একাডেমিক ভবন বর্ধিতকরণের জন্য সরকার বরাদ্দ দিলেও নির্মান কাজে এভাবে ব্যাপক অনিয়ম হলে ঝুঁকিপূর্নভাবে শিক্ষার্থীদের পাঠদান গ্রহন করতে হবে।কাজের শুরুতেই ব্যাপক অনিয়ম হওয়ার অভিযোগে বন্ধ হওয়া কাজ আবারও নিম্ন মানের নির্মান সামগ্রী দিয়ে শুরু করায় এলাকাবাসী,ছাত্র-ছাত্রী এবং অভিভাবক মহলে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।নিম্ন মানের খোয়া এবং পুরাতন মরিচা ধরা রড ব্যবহার করলেও ঠিকাদারের হুমকির মুখে কথা বলার সাহস পাচ্ছে না কেউ।”

ভবন নির্মানের দায়িত্বপ্রাপ্ত ইন্জিনিয়ার শাহাদাত হোসেন জানান,”নিম্ন মানের নির্মান সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগে মৌখিকভাবে কাজ বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।এগুলো ফেরত নিয়ে ভাল মানের নির্মান সামগ্রী সংগ্রহকরণ নিশ্চিত করে কাজ শুরুর কথা। রবিবারে (১৪ জুলাই) সরেজমিনে পরিদর্শন করব।অনিয়ম পেলে এবার লিখিতভাবে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হবে।তবে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি এই ডিপার্টমেন্টের কাজে প্রথম বিধায় কিছুটা সমস্যা হচ্ছে।”

পিরোজপুর জোনের শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রতিভা সরকার জানান,” বিষয়টি তিনি জেনেছেন। এ ব্যাপারে খুব শীঘ্রই সরেজমিনে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহন করবে বলে জানিয়েছেন।”

এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়ার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রামিশা এন্টারপ্রাইজ জানান,”১’শ ফুট খোয়ায় একটু সমস্যা আছে। ভূলবশত আমার ম্যানেজার নিয়েছে। তবে নিম্নমানের খোয়াগুলো নির্মান কাজে ব্যবহার করব না।”